সুশান্ত সিং রাজপুতের আত্মহত্যার পর থেকে ভারতীয় বিনোদনজগতে শুধুই অস্থিরতা। একের পর এক দুঃসংবাদ আসছেই। সেই দুঃসংবাদের পাল্লা এবার আরও ভারী হলো। আবার এক প্রাণ অকালে ঝরে গেল। এবার মৃত্যুর মিছিলে শামিল হয়েছেন তামিল টেলিভিশন দুনিয়ার জনপ্রিয় অভিনেত্রী ভিজে চিত্রা। চেন্নাইয়ের নসরপেট এলাকার এক হোটেলের ঘরে তাঁর ঝুলন্ত দেহ পাওয়া গেছে।

হাসিখুশি, প্রাণবন্ত ২৮ বছর বয়সী চিত্রার আত্মহত্যাকে ঘিরে একরাশ ধোঁয়াশা। কারণ, মৃত্যুর কয়েক ঘণ্টা আগে চিত্রা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এক ভিডিও পোস্ট করেন। এই ইনস্টা স্টোরিতে তাঁকে অত্যন্ত হাসিখুশি দেখাচ্ছে। চিত্রার এই ভিডিওর ব্যাকগ্রাউন্ডে কোনো সেটের ছবি ধরা দিয়েছে। ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, এই তামিল নায়িকা কারও সঙ্গে ফোনে কথা বলছেন। এখন প্রশ্ন, মাত্র কয়েক ঘণ্টার মধ্যে এমন কী ঘটল যে চিত্রা আত্মহত্যার মতো চরম সিদ্ধান্ত নিলেন। আবার অনেকের মতে, বেশ কিছু দিন ধরে এই অভিনেত্রী মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন।

জানা গেছে, চিত্রা তাঁর হবু স্বামী হেমন্ত রবির সঙ্গে চেন্নাইয়ের এক হোটেলে ছিলেন। সম্প্রতি চেন্নাইয়ের এই নামজাদা ব্যবসায়ীর সঙ্গে তাঁর বাগদান হয়েছিল। চিত্রা দিবাগত রাত ২টা ৩০ মিনিটে শুটিং সেরে হোটেলে ফিরেছিলেন। হেমন্তের জবানবন্দি অনুযায়ী, শুটিং সেরে হোটেলে ফিরে চিত্রা স্নান করার জন্য স্নানঘরে ঢুকেছিলেন।

দীর্ঘক্ষণ কোনো সাড়াশব্দ না পেয়ে হেমন্ত স্নানঘরের দরজায় কড়া নাড়েন। তারপরও সাড়া না পেয়ে তিনি হোটেলের কর্মচারীদের বিষয়টা জানান। তখন নকল চাবির সাহায্যে হোটেলের স্নানঘরের দরজা খোলা হয়। আর তখনই সবাই সিলিং থেকে চিত্রার ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করেন। পুলিশ এই আত্মহত্যার তদন্ত করছে।

চিত্রার এই অকালমৃত্যুতে স্তব্ধ দক্ষিণী টেলিভিশন দুনিয়া। তাঁর অনুরাগীরা কার্যত ভেঙে পড়েছে। কিছুতেই কেউ মেনে নিতে পারছে না চিত্রার এই মর্মান্তিক পরিণতি। চিত্রা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অত্যন্ত সক্রিয় ছিলেন। তাই তাঁর নেট অনুরাগীরাও একরাশ বিষাদে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তারা শোক জ্ঞাপন করছে।

চিত্রার পরিবার থেকে এখনো কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। পুলিশ এই টেলি অভিনেত্রীর লাশ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে।

গত ১৪ জুন মুম্বাইয়ে অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের লাশ ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায়। সুশান্তের মৃত্যুর তিন দিন আগে সুশান্তের সাবেক ম্যানেজার, ২৮ বছর বয়সী দিশা সালিয়ান উঁচু বিল্ডিং থেকে লাফ দিয়ে আত্মহত্যা করেন।

এরপর ভারতের বিনোদনজগতে আরও বেশ কিছু অপমৃত্যুর ঘটনা ঘটে। আগস্টে অভিনেতা সমীর শর্মা লাশ উদ্ধার করা হয় নিজের বাসা থেকে। সেপ্টেম্বরের শুরুতে তেলেগু টিভি অভিনেত্রী শ্রাবণী কোন্দপল্লি হায়দরাবাদের নিজ বাসভবনে আত্মহত্যা করেছেন। তার কিছুদিন পর মাত্র দুদিনের ব্যবধানে দুজন অভিনেতা আত্মহত্যার খবর মিলেছে। তাঁদের একজন হলেন টেলিভিশন সিরিয়ালের অভিনেতা অক্ষত উত্তরাক্ষ, অন্যজন দক্ষিণ ভারতীয় চলচ্চিত্রাভিনেতা থেন্নারাসু।

গত নভেম্বর মাসে হিমাচল প্রদেশের একটি ব্যক্তিমালিকানাধীন অবকাশযাপন কেন্দ্রে পাওয়া গেছে বলিউড অভিনেতা আসিফ বসরার ঝুলন্ত দেহ। পুলিশের বরাত দিয়ে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে তিনি আত্মহত্যা করেছেন। এরপর যোগ হলো অভিনেত্রী ভিজে চিত্রা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here