• দেশজুড়ে

    সুনামগঞ্জের শাল্লায় চেয়ারম্যানের জামাতার দখলে ক্লিনিকের জায়গা উদ্ধারে নেই কোন পদক্ষেপ

      প্রতিনিধি ১৩ জুন ২০২২ , ৩:২০:৩৪ প্রিন্ট সংস্করণ

    নিজস্ব প্রতিনিধি::
    সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলার ২ নং হবিবপুর ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান সুবল চন্দ্র দাসের জামাতা ধীরেন্দ্র দাস শশুরের প্রভাবে দীর্ঘ দিন ধরে জোরপূর্বক দখল করে রেখেছে সরকারি কমিউনিটি ক্লিনিকের জায়গা। তবে চেয়ারম্যান অবশ্য বলেছেন তার জামাতা জায়গা দলিল মারফত ক্রয় করেছেন।

    1

    সরজমিনে দেখা যায়, হবিবপুর ইউনিয়নে ৫ নং ওর্য়াডের শাসখাই বাজারের ব্যবসায়ী ও সাবেক ইউপি সদস্য রতীন্দ্র দাস বলেন, আমি জানি চেয়ারম্যানের জামাই ধীরেন্দ্র দাস কমিউনিটি ক্লিনিকের জায়গায় দোকান ঘর তৈরি করে ব্যবসা করছে।

    সরকারি ক্লিনিক স্থাপনের জন্য দত্তপাড়া মৌজা নং (২৯) সাবেক খতিয়ান ১৬৯ দাগ নং ১৫৫ হালদাগ ১৪৭ পরিমান ৫ শতক ভুমি ১৪/১০/ ১৯৯৯ ইং সনে ৮৪৫ নং দলিল মূলে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সচিব বরাবরে দত্তপাড়া গ্রামের রাখল দাস, কৃপাময় দাস ও পরেশ দাস দানপত্র দলিল করে দেন। তখন উক্ত জায়গাটি পতিত অবস্থায় ছিল। পরে উক্ত জায়গায় শাসখাই বাজরটি স্থাপতি হয়। তখন দখলকৃত প্রভাবশালী ব্যক্তির জামাতা ক্রয় করেছে মর্মে ক্লিনিকের জায়গায় দোকান ঘর নির্মাণ করে ব্যবসা চালিয়ে আসছে। সম্প্রতি শাল্লা হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ক্লিনিকের জায়গা উদ্ধারের জন্য বিভিন্ন মহলে যোগাযোগ করছে বলে জানা যায়। উপজেলা কৃষকলীগ আহবায়ক রঞ্জিৎ কুমার দাস জানান , প্রভাব থাকলেই কি সরকারি জায়গা দখলে রাখবে এ কেমন কথা, এটি খুবই দুঃখ জনক। প্ তিনি বলেন সরকারি জায়গা উদ্ধারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে প্রশাসনকেই । কথা হয় হাসপাতালের প্রধান সহকারী নিশিকান্ত তালুকদারের সঙ্গে, তিনি বলেন, বিষয় টি ইতিপূর্বে আমার জানা ছিলনা। কয়েক দিন পুর্বে ক্লিনিকের জায়গা সংক্রান্ত একটি দলিল আমার কাছে এসেছে বিষয়টি আমার কর্তৃপক্ষকে অবগত করা হয়েছে । এখন নিয়ম অনুযায়ী সরকারি জায়গা উদ্ধারের পরবর্তী ব্যবস্থা নিবেন সরকার।

    এবিষয়ে দখলকৃত ধীরেন্দ্র দাস জানান আমি জায়গা ক্রয় করে ব্যবসা করছি। কোন সরকারি জায়গা দখল করিনি। কতটুকু জায়গা ক্রয় করেছেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, ক্রয় করেছি মোট ৫ শতক তবে দলিল হয়েছে ৩ শতকের বাকী ২ শতকের দলিল করে নিবো বলে জানান।

    এবিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের প্রধান ইউএইচও ডাক্তার সেলিনা জাহান বলেছেন, আমি সদ্য এখানে যোগদান করেছি। ক্লিনিকের জায়গা দখলে রয়েছে বলে জানতে পেরেছি। ওছিরেই সরকারি জায়গা উদ্ধারের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

    সরকারী জায়গা উদ্ধারের বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আবু তালেব সাথে কথা হলে তিনি জানান ক্লিনিকের জায়গার বিষয়ে আমায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ অবগত করেছেন, অচিরেই জায়গা উদ্ধারের প্রয়োজনী পদক্ষেপ নেয়া হবে ।

    আরও খবর 24

    Sponsered content