বিশেষ এক পদ্ধতি উদ্ভাবন করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। পিবিআই একটি সফটওয়্যার তৈরি করেছে। এই সফটওয়্যারের মাধ্যমে অল্প সময়ে শনাক্ত করা যাবে যে কোনো মানুষের আসল পরিচয়।

কোনো অপরাধী মিথ্যা পরিচয় দিলে তার সঠিক পরিচয় এ পদ্ধতিতে সঙ্গে সঙ্গেই নিশ্চিত হওয়া যাবে।

এই সফটওয়্যার সম্পর্কে জানতে চাইলে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের প্রধান ডিআইজি বনজ কুমার মজুমদার যুগান্তরকে বলেন, এ প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন করতে দুই বছরের বেশি সময় লেগেছে। এ সফটওয়্যারটির মাধ্যমে অটো লাইভে পরিচয় শনাক্ত হয়।

তিনি বলেন, যার পরিচয় শনাক্ত প্রয়োজন, ওই সফটওয়্যারের মোবাইল ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানারের মাধ্যমে প্রথমে তার দুই হাতের মধ্যমা ও বৃদ্ধাঙ্গুলের চাপ সংগ্রহ করা হয়।

এটিকে আমরা লাইভ ফিঙ্গারপ্রিন্ট বলি। ফিঙ্গারপ্রিন্ট গ্রহণের পর ওই সফটওয়্যারটি তা কনভার্ট করে পিবিআই সদর দফতরে অবস্থিত ‘সেন্ট্রাল অ্যাপ্লিকেশন সার্ভারে’ প্রেরণ করে। পিবিআই সদর দফতর ল্যাব থেকে এ ফিঙ্গারপ্রিন্ট অটো চলে যায় নির্বাচন কমিশনে রক্ষিত ‘ফিঙ্গারপ্রিন্ট ডাটাবেজে’। এর পর রিড করতে শুরু করে।

মুহূর্তেই খুঁজে বের করে ওই ব্যক্তির ছবি, ঠিকানাসহ সব তথ্য নিয়ে চলে আসে পিবিআই সদর দফতরের ল্যাবে। এখানে রেকর্ড জমা রেখে ফিঙ্গারপ্রিন্ট যেখান থেকে পাঠানো হয়েছিল, সেখানে চলে যায়। জানিয়ে দেয় ফিঙ্গারপ্রিন্ট ম্যাচ হয়েছে। এভাবে মাত্র ৫ মিনিটের মধ্যে আমরা কাজটা সারতে পারি।

পিবিআই ডিআইজি বলেন, আমরা পুলিশ সদর দফতরে চিঠি দিয়েছি। এ পদ্ধতি নিয়ে আরও কাজ এগোচ্ছে। শতভাগ কাজ সম্পন্নের পর আমরা তা দেশের সব জেলায় পিবিআই দফতরে দিয়ে দেব।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here