উজ্জ্বল রায়, নড়াইল জেলা প্রতিনিধি: নড়াইলের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, পিপিএম এর হস্তক্ষেপে জেলেদের মধ্যকার দীর্ঘদিনের দ্বন্দের অবসান ঘটলো। নড়াইলের বাড়িভাঙ্গা খালের মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে স্থানীয় জেলেদের দুপক্ষের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে দ্বন্দ চলে আসছিল। এই সংবাদের পরিপ্রেক্ষিতে নড়াইলের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, পিপিএম শুক্রবার (২৬ অক্টোবর) সকাল ৯টায় বাড়িভাঙ্গা খালপাড়ে বসে দুই পক্ষের মধ্যে চলমান দ্বন্দের অবসান ঘটান। এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিথ ছিলেন পুলিশ সুপারের সহধর্মিনী ও পুনাকের সভানেত্রী নাহিদা আক্তার সুমি, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান, দুই পক্ষের জেলেরাসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। গণমাধ্যমকর্মীদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন নড়াইল জেলা অনলাইন মিডিয়া ক্লাবের সভাপতি উজ্জ্বল রায়, সাধারণ সম্পাদক মোঃ হিমেল মোল্যা, সাংগঠনিক সম্পাদক বুলু দাস, ক্লাবের সকল সদস্যবৃন্দসহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ। দুই পক্ষের জেলেদের সাথে কথা বলে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, পিপিএম প্রতি পক্ষকে সপ্তাহে তিন দিন করে মাছ ধরার জন্য নির্দেশ দেন। সেই সাথে কারেন্ট জাল পরিহার করে শুধুমাত্র ভেসাল জাল দ্বারা মাছ ধরার পরামর্শ দেন। পুলিশ সুপারের এই কাজে সন্তোষ প্রকাশ করেন দুই পক্ষের জেলেরা। অপরদিকে নড়াইল জেলায় তাবলীগ জামায়াতের চলমান পরিস্থিতি নিরসনের লক্ষে নড়াইল জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার (২৬ অক্টোবর) বিকাল ৪টায় নড়াইলের জেলা প্রশাসক আঞ্জুমান আরার সভাপতিত্বে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন নড়াইলের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, পিপিএম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোঃ শরফুউদ্দীন, জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ, নড়াইল জেলা তাবলীগ জামায়াতের সদস্য ও নেতাকর্মীবৃন্দসহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ। মতবিনিময় সভায় জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার উভয় পক্ষের কথাবার্তা শুনে একটি সঠিক সিদ্ধান্তের মাধ্যমে চলমান দ্বন্দের নিরসন ঘটান। সেই সাথে সকলকে একযোগে ইসলাম প্রচারে ব্রতী হওয়ার জন্য উদাত্ত আহ্বান জানান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here