পাবনার সুজানগরে দুলাভাইকে বেঁধে রেখে গৃহবধূকে (৩০) গণধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। রোববার (২২ মার্চ) সন্ধ্যায় উপজেলার চরভবানীপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় সুজানগর পৌর ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. সুমন খানসহ (২০) পাঁচজনকে আসামি করে মামলা করেছেন ওই গৃহবধূ। মামলার পর সরদার সুমন হোসেন পটল (২২) নামে অভিযুক্ত একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গ্রেফতার সুমন হোসেন পটল চর সুজানগর এলাকার মান্নান সরদারের ছেলে। ওই গৃহবধুর বাড়ি পাবনার সাঁথিয়া উপজেলার মিয়াপুর গ্রামে।

ওই গৃহবধূ জানান, রোববার সন্ধ্যায় দুলাভাইয়ের সঙ্গে একটি ভ্যানে করে কোলাদী বোনের বাড়িতে যাচ্ছিলেন তিনি। সন্ধ্যা ৭টার দিকে তারা পাবনা-সুজানগর সড়কের চরভবানীপুর এলাকায় পৌঁছালে এলাকার চিহ্নিত বখাটেরা তাদের পথরোধ করে। একপর্যায়ে বখাটেরা তার দুলাভাইকে মারধর করে বেঁধে রেখে তাকে রাস্তার পাশে গম ক্ষেতে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। পরে তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনায় ওই গৃহবধূ সোমবার সকালে সুজানগর থানায় পাঁচজনের নাম উল্লেখ করে মামলা দায়ের করেন। মামলার পরই পুলিশ অভিযান চালিয়ে সরদার সুমন ওরফে পটল নামে একজনকে গ্রেফতার করে।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে সুজানগর থানা পুলিশের ওসি (তদন্ত) হাদিউল ইসলাম বলেন, প্রাথমিকভাবে আমরা ঘটনার সত্যতা পেয়েছি। গণধর্ষনের শিকার ওই গৃহবধূকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য সোমবার পাবনা জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ঘটনার সঙ্গে অন্য যারা জড়িত রয়েছে তাদের গ্রেফতারে অভিযান চালানো হচ্ছে।

একে জামান/আরএআর/এমএস

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here