• Uncategorized

    জামালগঞ্জে বৃক্ষ নিধনে বাঁধা দেওয়ায় বাদীকে হুমকি, থানায় জিডি!

      প্রতিনিধি ২ আগস্ট ২০২২ , ৩:৩০:৩৬ প্রিন্ট সংস্করণ

    নিজস্ব প্রতিনিধি::সুনামগঞ্জ জেলার জামালগঞ্জ উপজেলার ফেনারবাঁক ইউনিয়নের কামারগাঁও গ্রামে বৃক্ষ নিধনে বাঁধা দেওয়ায় অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক মঞ্জুলাল তালুকদার ও তার পরিবারকে মারধরের হুমকি-ধামকিসহ তন্ডব চালাচ্ছে পার্শ্ববর্তী মৎস্যজীবি অর্জুন দাস গং লোকজন। এতে ভীত হয়ে ঐ অবসর প্রাপ্ত শিক্ষক বাদী হয়ে জামালগঞ্জ থানায় একটি জিডি করেছেন। জিডি নং-২১, তাং-০১-০৭-২০২২ইং।

    1

    অভিযোগকারী মঞ্জুলাল তালুকদার (৫৯)কামারগাঁও গ্রামের বাসিন্দা। তিনি শিক্ষকতা থেকে সদ্য অবসরে আছেন। সম্প্রতি তার অসুস্থতার সুযোগে প্রতিবেশী উল্লেখিত মৎস্যজীবি পরিবারের উশৃঙ্খল লোকজন ঐ শিক্ষকের পরিবারকে নানাভাবে উত্যক্ত করে আসছিল।

    তাছাড়া ঐসব বখাটে মৎস্যজীবিদের অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ সহ নানা উপদ্রব, সামাজিক বিশৃঙ্খলা ও উৎপাতে অতিষ্ঠ হয়ে শান্তিপ্রিয় প্রতিবেশিরাও প্রতিনিয়ত নাজেহাল হচ্ছিলেন। এরই একপর্যায়ে গত ১৬জুন মৎস্যজীবি লোকজন জোর করে মঞ্জুলাল তালুকদারের বাড়ির সীমানায় একটি বাড়ন্ত গাছ কেটে ফেলে। এতে বাঁধা দিতে গেলে মঞ্জুলাল তালুকদার এবং তার পরিবারের উপর চড়াও হয় উশৃঙ্খল মৎস্যজীবিরা। লাঠিসোটা নিয়ে মহড়া চালিয়ে মঞ্জুলাল এবং তার পরিবারের লোকজনকে দেখে নেওয়ার হুমকি দেয়। এতে ভীত হয়ে মঞ্জুলাল তালুকদার জামালগঞ্জ থানায় উক্ত জিডি করেন।

    অভিযুক্তরা হচ্ছে, একই গ্রামের উগ্রসেনের পুত্র অর্জুন দাস(৩০),শিবচরণ দাসের পুত্র শ্রীনিবাস দাস(৩০)ও শ্রীচরণ দাস(২৭), নেত্রকোনা জেলার কলমাকান্দা থানার মনতলা গ্রামের মৃত মাখন দাসের পুত্র সবিন্দ্র দাস(৩৫)।

    অভিযোগের প্রেক্ষিতে সরজমিন গেলে অন্যান্য প্রতিবেশিরা জানান, অভিযুক্তরা প্রতিবেশিদের নাজেহাল করতে নানাভাবে উৎপাত করেই থেমে নেই। তারা দীর্ঘদিন ধরে নিষিদ্ধ পন্থায় দেশের মৎস্য সম্পদ বিনষ্ট করে আসছে। রাতভর পাগনার হাওরে বিভিন্ন প্রান্তে নিষিদ্ধ কোনাজাল, কারেন্ট জাল দিয়ে, টাংকি বোঝাই করে বিপুল পরিমাণে পোনামাছ নিধন করে ভোরে ভৈরব চালান করে। তাদের ঘাটে হাওরে মাছ ধরার কাজে ব্যবহৃত কোনাজাল ও কারেন্টজাল বোঝাই করা ইঞ্জিন চালিত বড় দুইটি নৌকা রয়েছে। আর অবৈধ ভাবে এসব মাছ বিক্রির টাকার গরমে তারা প্রতিবেশিদের মানুষ হিসেবেই গণ্য করে না।

    মঞ্জুলাল তালুকদারের করা অভিযোগের বিষয়ে জামালগঞ্জ থানার সংশ্লিষ্ট তদন্ত কর্মকর্তা জানান, এব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।#

    আরও খবর 1

    Sponsered content