প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের তাণ্ডবে আবারও দিশেহারা হয়ে পড়েছে বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধর রাষ্ট্র আমেরিকা। দেশটিতে পরিস্থিতির চরম অবনতি হয়েছে। এরই মধ্যে মহামারীর প্রথম ঢেউয়ে সর্বোচ্চ মৃতের সংখ্যা হার মেনেছে দ্বিতীয় ঢেউয়ের কাছে।

জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্যানুযায়ী, প্রথমে ঢেউয়ের সময় দৈনিক সর্বোচ্চ মৃত্যু ছিল (১৫ এপ্রিল) ২ হাজার ৬০৭ জন।

আর দ্বিতীয় ঢেউয়ে গত বুধবার (২ ডিসেম্বর) করোনায় প্রাণ হারিয়েছেন ৩ হাজার ১৫৭ জন। হাসপাতালগুলোতেও সংক্রমিত রোগীদের উপচে পড়া ভিড়ও বেড়েছে আগের মতই।
এদিকে ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্যানুযায়ী, শুক্রবার (৪ ডিসেম্বর) সকাল ৮টা পর্যন্ত দেশটিতে পূর্ববর্তী ২৪ ঘণ্টায় করোনায় প্রাণ হারিয়েছেন ২ হাজার ৯১৮ জন।

এ নিয়ে দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২ লাখ ৮২ হাজার ৮২৯ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে নতুন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে ২ লাখ ১৮ হাজার ৫৭৪ জন।

এখন পর্যন্ত দেশটিতে ১ কোটি ৪৫ লাখ ৩৫ হাজার ১৯৪ জনের দেহে সংক্রমণ অস্তিত্ব পাওয়া গেছে।

এদিকে প্রতিদিন করোনার দ্রুত সংক্রমণ এবং মৃতের সংখ্যা বৃদ্ধির পরিপ্রেক্ষিতে দেশের বরেণ্য কয়েকজন চিকিৎসকের মতো জর্জ ওয়াশিংটন বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিসিনের অধ্যাপক ড. জনাথান রীনার আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন যে আগামী ৮ ডিসেম্বর থেকে যুক্তরাষ্ট্রে প্রতিদিন ৪ হাজারেরও বেশি মানুষের মৃত্যু হতে পারে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here